হ্যান্ড স্যানিটাইজারে সতর্কবার্তা যুক্ত করার নির্দেশ

করোনায় ব্যবহৃত হ্যান্ড স্যানিটাইজার, জীবাণুনাশক স্প্রে-সহ এ ধরনের পণ্যের গায়ে দাহ্য পদার্থ (আগুনের সংস্পর্শে আসলে সহজেই জ্বলে উঠে) উল্লেখ করে সতর্কতামূলক নির্দেশনা যুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
বুধবার (২৯ জুলাই) জনস্বার্থে দায়ের করা এক রিটের শুনানিতে বিচারপতি তারিক উল হাকিমের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন রিটকারী অ্যাডভোকেট মো. মাহফুজুর রহমান মিলন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাস গুপ্ত এবং সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সায়েম মোহাম্মদ মুরাদ।

পরে অমিত দাসগুপ্ত বলেন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, জীবাণুনাশক স্প্রেসহ অনুরূপ দ্রব্য সমূহে ব্যবহৃত উপাদান সমূহ অত্যন্ত দাহ্য পদার্থ। এই দ্রব্যসমূহের গায়ে সতর্কতামূলক নির্দেশনা না থাকায়, অজ্ঞতাবশতঃ এসব দ্রব্য ব্যবহারে প্রায়শই দুর্ঘটনা ঘটছে। সম্প্রতি এইরূপ দুর্ঘটনায় একজন ডাক্তার মৃত্যুবরণ করেছেন। তাই হ্যান্ড স্যানিটাইজার, জীবাণুনাশক স্প্রেসহ অনুরূপ দ্রব্য সমূহের গায়ে সতর্কতামূলক নির্দেশনা যুক্ত করার জন্য জাস্টিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. মাহফুজুর রহমান মিলন রিট করেন।