শেরপুরে অবৈধ বালুমহাল গুঁড়িয়ে দিল ভ্রাম্যমাণ আদালত

বগুড়ার শেরপুরে করতোয়া নদীতে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বালুমহালে অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এ সময় বালু উত্তোলনের দায়ে উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের ফেরদৌস সরকারের ছেলে মাজেদ সরকারের কাছ থেকে ৫০০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পাশাপাশি বালু উত্তোলনের কাজে ব্যবহৃত একটি শ্যালোমেশিন ও প্লাস্টিকের পাইপ জব্দ করে তা ধ্বংস করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ জুলাই) বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জামশেদ আলাম রানার নেতৃত্বে খানপুর ইউনিয়নের ভীমজানি গ্রামস্থ অবৈধ বালু মহালটিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযান পরিচালিত হয়।

আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জামশেদ আলাম রানা এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, করতোয়া নদীর ওই এলাকায় সংঘবদ্ধ একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছিল। এতে করে ফসলি জমি ও বসতবাড়ি ধসে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। গোপনে বিষয়টি জানতে পেরে সেখানে অভিযান চালানো হয়। অবৈধ এই বালু মহালটি উচ্ছেদ করে বালু উত্তোলনের কাজে ব্যবহৃত শ্যালোমেশিন ও পাইপ অকেজো করা হয়েছে। পাশাপাশি এই কাজে জড়িত থাকার দায়ে বালু ব্যবসায়ী মাজেদের কাছ থেকে উক্ত পরিমাণ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। কোন অবস্থায় অবৈধভাবে কাউকে বালু উত্তোলন করতে দেয়া হবে না বলেও ঘোষণা দেন এই কর্মকর্তা।

পরে উপস্থিত উৎসুক জনতার উদ্দেশ্যে বালু উত্তোলনের ক্ষতিকর দিক নিয়েও আলোচনা করেন তিনি।