যেভাবে ‘করোনামুক্ত’ হলেন তমা মির্জা

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী তমা মির্জা সপরিবারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। গত বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) করোনা পরীক্ষা করলে ফল নেগেটিভ আসে। মানসিক শক্তি, সঠিক সিদ্ধান্ত আর ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন বলে এনটিভি অনলাইনকে জানিয়েছেন।

গত ৯ জুলাই করোনা পরীক্ষা করলে পজিটিভ ফল আসে। একই সময় তাঁর মায়েরও করোনা পজিটিভ আসে। শুরু থেকেই শারীরিকভাবে বেশ দুর্বল ছিলেন তাঁরা। তবে মনোবল হারাননি। হাসপাতালে ভর্তির জন্য ডাক্তার পরামর্শ দিলেও হাসপাতালে যাওয়ার সাহস পাননি তাঁরা।

বাসায় অক্সিজেনের মতো চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে এসেছিলেন তমা। বাসায়ই চিকিৎসা নিয়েছেন। তবে অক্সিজেন পাওয়াটা সহজ ছিল না বলে দাবি তমার।

তমা বলেন, ‘ঢাকা বা তার আশপাশে কোথাও অক্সিজেন পাচ্ছিলাম না। এ নিয়ে অনেকটাই হতাশ ছিলাম। এটি জানতে পেরে গানবাংলা প্রতিষ্ঠান থেকে আমাদের জন্য অক্সিজেন পাঠিয়েছে। আমরা তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।’

দীর্ঘ এক মাস দুদিন আইসোলেশনে থাকায় ঘরে রান্নার কোনো ব্যবস্থা ছিল না। শ্বশুরবাড়ি থেকে তাঁদের খাবার এসেছে। মাঝেমধ্যে বাইরের খাবারও খেয়েছেন তিনি। তবে করোনার সময় খাওয়ার মতো অবস্থা ছিল না বললেই চলে।

তমা বলেন, ‘শ্বশুরবাড়ি থেকে আমার পছন্দের খাবারগুলো রান্না করে পাঠিয়েছেন আমার শাশুড়ি। আবার আমার স্বামীও সব সময় খবর নিয়েছে। খাবার পাঠানো হয়েছে হোটেল থেকেও। তবে খাবারে রুচি ছিল না।’

করোনায় আক্রান্ত হলে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটা জরুরি জানিয়ে তমা বলেন, ‘করোনা হয়েছে শোনার পর মানুষ এমনিতেই ভয় পেয়ে যায়। যে কারণে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে অনেকেরই সমস্যা হয়। আমার মনে হয়েছে, এ সময় মাথা ঠাণ্ডা রাখা জরুরি। ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চললে করোনা জয় সম্ভব।’

পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এলেও শরীরে ব্যথা, জ্বর ও কাশি রয়েছে জানিয়ে তমা বলেন, ‘দীর্ঘ এক মাস দুদিন ধরে শরীরের ওপর যে ধকল গেছে, তা এখনো রয়েছে। মনে হচ্ছে পুরোপুরি সুস্থ হতে আরো সময় লাগবে। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

১১ আগস্ট থেকে শুটিংয়ে অংশ নেবেন তমা মির্জা। বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলে উপস্থাপনা করেন তিনি। এতে অতিথি থাকছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক রিয়াজ। জাতীয় শোক দিবস নিয়ে পর্বটি ১৫ আগস্ট সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় দেশ টিভিতে প্রচার হবে।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নায়িকা তমা মির্জার অভিষেক হয় এম বি মানিকের ‘বলো না তুমি আমার’ ছবির মাধ্যমে। ২০১৫ সালে শাহনেওয়াজ কাকলি পরিচালিত ‘নদীজন’ সিনেমায় অভিনয় করে ‘শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী’ বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এ ছাড়া এ চিত্রনায়িকা অভিনয় করেছেন অনন্ত হীরা পরিচালিত ‘ও আমার দেশের মাটি’, শাহাদাৎ হোসেন লিটনের ‘অহংকার’, দেবাশীষ বিশ্বাসের ‘চল পালাই’, রয়েল খানের ‘গেইম রিটার্নস’ ও মারিয়া তুষারের ‘গ্রাস’ ছবিতে। পাশাপাশি টিভিতে বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন তিনি।