মোমেন-মাহবুবের পর পালিয়েছে অনুসারীরাও

রাজধানীর প্রান্তিক এলাকা পাতিরা ও রূপগঞ্জের সন্ত্রাসীদের গডফাদার মো. মোমেন ও তার ভাগিনা মাহবুব আলমের বিরুদ্ধে প্রতারণার অনেক চাঞ্চল্যকর খবর গত কয়েক দিন মানবকণ্ঠে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে গা-ঢাকা দিয়েছেন তারা। গডফাদারদের কাছে না পেয়ে এলাকা থেকে সটকে পড়েছে তাদের অনুসারী সন্ত্রাসীরাও। রোববার সারা দিন রাজধানীর ৪৩নং ওয়ার্ডের পাতিরা, ডুমনি, তলনা, ডেলনা, মস্তুল ও কাঁঠালদিয়া এলাকা ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী জানায়, গত এক সপ্তাহের আগেই মোমেনের ক্যাডার বাহিনী করোনার মধ্যেও এলাকায় ঘুরে বেড়াত। কিন্তু গত দু-তিন দিন যাবৎ তাদের মহড়া তেমন দেখা যাচ্ছে না।

আরো পড়ুন : মামা-ভাগিনা সিন্ডিকেটে অতিষ্ঠ পাতিরার মানুষ

বর্তমান উত্তর সিটি কর্পোরেশনের বাসিন্দা সাবেক একজন ইউপি সদস্য জানান, ‘শুনেছি নেতা মোমেনের বিরুদ্ধে খিলক্ষেত থানায় দুই কোটি ৫০ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলা দায়ের করেছে আশিয়ান গ্রুপ। ওই মামলা দায়ের ও পত্রিকায় নিউজ হওয়ার পর মোমেনসহ তারা ক্যাডার বাহিনীর লোকজন এলাকা ছেড়ে গা-ঢাকা দিয়েছে। পালিয়ে বেড়াচ্ছে জনরোষ থেকে রক্ষা পেতে।’

আরো খবর : প্রতারক মোমেনকে খুঁজছে পুলিশ

এদিকে মোমেনের কাছে যেসব ব্যক্তি মোটা অংকের টাকা পাবেন তারাও তাকে হন্যে হয়ে খুঁজছেন বলে জানা গেছে। আরেকটি সূত্রে জানা গেছে, পুলিশের গ্রেফতারি পরোয়ানা থেকে রক্ষা পেতে আদালত থেকে আগাম জামিনের চেষ্টা করে যাচ্ছেন সন্ত্রাসী মোমেন।

তার এক নিকট প্রতিবেশী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে মোমেন। তার মধ্যে ভয় ঢুকে গেছে। মোবাইল ফোনে ছেলে মিশু আর স্ত্রী ছাড়া কারো সঙ্গে যোগাযোগ করছেন না।

অপরদিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা জানান, টাকা ও সন্ত্রাসী-ক্যাডার বাহিনীর অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে দলের পদ-পদবির অপব্যবহার করছেন মো. মোমেন ও ভাগিনা মাহবুব।

তিনি জানান, ক্যাসিনো সম্রাট, জি কে শামীম, সাহেদ ও পাপিয়ার মতোই নষ্ট চরিত্রের এই মোমেন। এসব নষ্ট লোকের মতোই পাতিরা ও রূপগঞ্জে রাজনীতি করে যাচ্ছে মোমেন ও মাহবুব।

আরো পড়ুন : সমিতির নামে কোটি টাকা হাতিয়ে উধাও মোমেন

নাম গোপন রাখার শর্তে তাদের মধ্যে একজন বলেন, ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে জমি দখল, নিরীহ মানুষের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন, খাল দখল, চাঁদাবাজিসহ সব অপকর্ম করেন মোমেন ও তার ভাগিনা মাহবুব।