মে’য়েরা কেনো বি’বাহিত ছে’লেদের প্রতি আ’কৃষ্ট হয়

প্রত্যেকটি মানু’ষেরই প’ছন্দ ভিন্ন রকম হয়। কেমন জীবনস’ঙ্গী হিসাবে ও প্রত্যেকে পছন্দটা অন্য রকম হয়। আর যদি মে’য়েদের প’ছন্দের কথা বলা হয় তাহলে অনেকেই আছে যারা তাদের প’ছন্দের কথা ঠিক করে বলতে পার’বেন না।স্কুল হোক বা কলেজ কম বেশি সকলেই প্রে’মে পড়ি।কেউ ক্লাসমেটের সা’থে আবার কেউ চিনে আরে সা’থে আবার কেউ ম্যাডাম বা স্যার দের প্রতি আক’র্ষিত হয়।

কেউ চাই টল ডার্ক হ্যান্ড’সাম আবার কেউ চায় বুদ্ধি’মান।কিন্তু মেয়েরা যখন একটু ম্যাচিওর হয় তখন থেকেই তাদের মধ্যে বি’বাহিত পুরু’ষের প্রতি আক’র্ষণ বেশি দেখা যায়।আসলে কারণটা কি একজন মেয়ে আবার অবি’বাহিত পু’রুষ চেনার জন্য পু’রুষদের প্রতি আক’র্ষিত হও’য়ার কারন টা কি? এক স’মীক্ষায় জানা গেছে অবি’বাহিত না’রীদের কাছে পাই তো পু’রুষের আ’কৃষ্টতা বেশি।

আসুন জেনে নেই কিছু কারণ
১) স’ম্প্রতি একটি গবে’ষণায় দেখা গেছে যে একজন মেয়ের কাছে এক’জন অবি’বাহিত পুরু’ষের থেকে বি’বাহিত পুরু’ষের দিকে আক’র্ষণ টা বেশি হয়। কারণ একজন পু’রুষ যখন প্রে’মিকা বা স্ত্রী থাকে তখন সেই পু’রুষ নিশ্চয়ই দ’য়ালু ও ম্যাচিউরড হয়।যাদের চোখ ব’ন্ধ করে বি’শ্বাস করা যায়। শুধু মানুষ নয় মাছ পাখিরাও নাকি এইট একই পদ্ধ’তিতে একে অপরের প্রতি আ’কৃষ্ট হয় এমনটাই দাবি ম’নোবিদ দের।

2) এই ব্যাপারটা সবাই জানি যে একজন বি’বাহিত পুরুষ একজন অবি’বাহিত পুরু’ষের থেকে ইমো’শানের দিক থেকে অনেকটা এগিয়ে। একবার বি’য়ে করার ফ’লে তারা মহি’লাদের বেশিক সাই’কোলজি ভালোভাবে বুঝতে পারেন। তাই ইমো’শনাল প্রবলেম গুলো বেশি থাকে না একজন বি’বাহিত পু’রুষের ক্ষেত্রে।

৩) বি’বাহিত পু’রুষের প্রতি শারী’রিক আকর্ষ’ণটা ও অবিবা’হিত মহিলাদের বেশি হয়। কারণ সাধারণ একজন অবি’বাহিত পুরু’ষের থেকে একজন বি’বাহিত পুরু’ষের মি’লনের ক্ষে’ত্রে অনুধাবন টা অনেকটা বেশি হবে ।
৪) সমীক্ষা বলছে একজন অবি’বাহিত পু’রুষ রতি’কার্য বিবা’হিত পুরু’ষের স’ঙ্গে মহিলারা বেশি নিরাপদ বোধ করেন। সেটা সামাজিক ই হোক বা আর্থিক দিক দিয়ে। বিবা’হিত পুরু’ষ সবদিক থেকে প্রতি’ষ্ঠিত হও’য়ার কারণে মহি’লারা অনেক নি’শ্চিন্ত ভাবে মেলা’মেশা করতে পারেন।

আরও প্রু’ন মেয়েরা আসলে কেমন ছেলে প’ছন্দ করে, জেনে নিন ট্রিক গুলো আজকে আমরা এই প্রতি’বেদন নিয়ে আলো’চনা করবো মেয়ে’দের কেমন ছেলে প’ছন্দ ।এম’নিতে তো মেয়ে’দের পিছনে ঘোরার জন্য ছেলে’দের অ’ভাব হয় না । তার মধ্যে এরকম ছেলে তো ক’মই হয় যাদের পিছনে মেয়ে’দের লাইন লেগে থাকে ।এমন কিছু ছেলে বা’স্তবে থেকে থাকে যাদের প্রায় সব মেয়েরাই প’ছন্দ করে ।

এই সব ছেলেদের মধ্যে কি এমন বি’শেষত্ব থাকে যে সব মেয়ে’রাই এদের উপর ফি’দা হয়ে যায়। আজ আমরা সেই বিষয় নিয়ে আলো’চনা করবো প্রথমত বর্তমান যুগে মেয়েরা সাধারণত ছেলেদের টাকা দেখে স’ম্পর্কে জড়ায়।এই ধরনের মেয়েরা আসলে ছেলেটিকে নয় তার টাকাকে ভালো’বাসে। তাই এখনকার দিনের বেশিরভাগ মেয়েরাই সেই সব ছেলে’দের সাথে প্রে’ম করে যাদের কাছে বাইক , ডিএসএলার, দামি মোবাইল ফোন এইসব থাকে।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত এইসব মেয়েরা শে’ষে গিয়ে এক ধরনের কাকু টাইপের ছেলে কি বি’য়ে করে তাদের কাছে অনেক মোটা রকম টাকা অথবা সর’কারি চাকরি করে। কিন্তু সব মে’য়েদের মানুষ কথাই একই রকম হয় না। তাই প্রশ্ন হলো মন থেকে কেমন ছেলে প’ছন্দ করে ।সবার প’ছন্দ কখনোই এক হয়ে থাকে না তাই এরকম নয় যে কিছু মেয়ে আপনাকে প’ছন্দ করলো মানে আপনি সবার কাছেই হিরো হয়ে গেলেন কেউ কেউ আপনাকে নাই প’ছন্দ করতে পারে।

কিন্তু এরকম ছেলে রয়েছে যাদের মধ্যে কিছু একটা বি’শেষত্ব রয়েছে সা’থে বেশিরভাগ মেয়েরাই তাদের ওপর দু’র্বল হয়ে পড়ে। মেয়েরা সাধারণত এমন ধরনের ছেলেকে বেশি পছন্দ করে থাকে যাদের সাধারণত সমাজ পছন্দ করে। আর যাদের অনেক বেশি বন্ধু’বান্ধব থাকে। অর্থাৎ সমস্ত মেয়েরা চায় স্মা’র্ট ছেলেদের।
অর্থাৎ মেয়েরা চায় ছেলেটি যেন স্মা’র্ট হয়ে থাকে। মেরা হাস’বেন্ড হিসেবে পাপয়ে ফ্রেন্ড হিসেবে সব সময় এমন ছেলে চাই যাতে শেষ স্মা’র্ট হয়ে থাকে তার একটা স্ট্যা’টাস থাকে।

আপনার যদি অনেক টাকা ও থেকে থাকে কিন্তু আপনাকে যদি স্কুলে কলেজে বাস সমাজে তেমন ভাবে কেউ না চেনে তাহলে আপনার টাকার কোন। তাই মেয়েরা চায় তাদের পার্ট’নার হিসেবে ছেলেটি যেন একটু ক্রিয়ে’টিভ কিছু করে থাকে।
তাই সবার মনেই স্মা’র্ট ছেলেদের জন্য একটা আলাদাই স’ম্মান থাকে। এরা সমাজে ইউনিক হওয়ার জন্য বেশ প’ছন্দের মানুষ হয় সবারই। আর মেয়েরা সব সময় এটাই চাই তার প্রিয় মানুষটির জন্য তার মাথা উঁচু থাকুক যেন একটু অ’হংকার হয়

তাই মেয়েদের সামনে আপনার স্মা’র্টনেস হাইলাইট করুন।মেয়েদের সাথে সাধারন ভাবে কথা বলুন ল’জ্জা পাওয়ার কোন দরকার নেই। এছাড়াও তারা চাইছে তার লাইফ পার্ট’নার স্মা’র্ট হোক যাতে যেকোন রকম ছোটখাটো সম’স্যা তে মেয়েটিকে হেল্প করতে পারে। কারণ মেয়েরা নিজেদের নিরা’পত্তা নিয়ে এমনি বেশি চি’ন্তিত থাকে তাই চায় ছেলেটি জেনেও মেয়ে’টিকে সুর’ক্ষিত রাখতে পারে।