মাদক কাণ্ডে কঙ্গনার বিরুদ্ধেও তদন্ত

মাদক কাণ্ডে বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌতের যোগ রয়েছে কিনা এ বিষয়ে তদন্ত করবে মুম্বাই পুলিশ। শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্র দপ্তর থেকে এ বিষয়ে একটি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এনডিটিভি ডটকমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কঙ্গনার প্রাক্তন প্রেমিক অধ্যায়ন সুমনের একটি সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও তদন্ত হবে। ২০১৬ সালের এক সাক্ষাৎকারে এই অভিনেতা দাবি করেন, প্রেমের সম্পর্কে থাকাকালীন তাকে মাদক সেবন করতে বাধ্য করতেন কঙ্গনা। এছাড়া ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে কঙ্গনা নিজেও দাবি করেছেন, এক সময় মাদক সেবন করতেন তিনি।

যদিও এই বিষয় থেকে দূরে থাকতে চান অধ্যায়ন সুমন। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘দয়াকরে এর মধ্যে আমার নাম টানবেন না। ২০১৬ সালে মিডিয়ায় এ বিষয়ে কথা বলায় আমাকে নিয়ে বিদ্রূপ করা হয়েছে। এখন আমার এ বিষয়ে কিছু বলার নেই।’

বর্তমানে কঙ্গনা ও শিবসেনার মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় মুম্বাই পুলিশের সমালোচনা করেন কঙ্গনা। এছাড়া মুম্বাইয়ের সঙ্গে পাকিস্তান শাসিত কাশ্মিরের তুলনা করেন। পরবর্তী সময়ে শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউতের সঙ্গে কঙ্গনার দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। এই অভিনেত্রীকে মুম্বাইয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে হুমকি দেন শিবসেনা সমর্থকরা।

সম্প্রতি এই অভিনেত্রীর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের অফিসের অবৈধ অংশ ভাঙার কাজ শুরু করে বৃহন্মমুম্বাই মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন (বিএমসি)। পরে আলাদত এর ওপর স্থগিতাদেশ দেন। ‘কুইন’ সিনেমাখ্যাত এই অভিনেত্রী দাবি করেন, শিবসেনার নির্দেশেই মহারাষ্ট্র সরকার তার পিছে লেগেছে।

শুধু তাই নয়, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেকে উদ্দেশ্য করে কঙ্গনা বলেন, ‘তিনি যেভাবে আমার ঘর ভেঙেছেন, তার ইগো ঠিক সেভাবেই ভেঙে যাবে।’ পরবর্তী সময়ে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বক্তব্য দেওয়ায় এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মুম্বাইয়ের বিক্রোলি থানায় একটি অভিযোগও দায়ের হয়।