বিএনপি নেত্রীর মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের শোক

কুড়িগ্রাম জেলা জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের আহবায়ক, দেশের প্রথম নারী পিপি অ্যাডভোকেট রেহানা খানম বিউটি চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার বিকাল ৫টা ৪৫ মিনিটে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
রেহানা খানম বিউটি’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
সোমবার (৩ আগস্ট) রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, রেহানা খানম বিউটি ছিলেন একজন দক্ষ সংগঠক, শহীদ জিয়ার নীতি ও আদর্শের বলিষ্ঠ অনুসারী। একজন উচ্চ শিক্ষিত ও বরেণ্য আইনজীবী হিসেবে কুড়িগ্রামবাসীর নিকট তিনি ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়। সরকারি নানা চাপের মধ্যেও তিনি অবিচল থেকে দলের সকল কর্মসূচিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতেন। তার অকাল মৃত্যু কুড়িগ্রাম জেলা বিএনপি’র জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি ছিলেন বলিষ্ঠ নারী নেত্রী, যিনি কঠোর পরিশ্রম করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলকে শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করেছিলেন। নারীদের ন্যায্য দাবি আদায়ে তিনি সবসময় ছিলেন সোচ্চার। কর্মীবান্ধব, সজ্জন ও কর্মতৎপর নারী নেত্রী হিসেবে তিনি যে অবদান রেখেছেন তা দলের নেতাকর্মীরা চিরদিন মনে রাখবে। আমি তার মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত ও ব্যথিত হয়েছি। মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে দোয়া করি তিনি যেন মরহুমা রেহানা খানম বিউটিকে জান্নাত নসীব এবং শোকাহত পরিবারবর্গকে ধৈর্য্য ধারণের ক্ষমতা দান করেন।

অ্যাডভোকেট রেহানা খানম বিউটির মৃত্যুতে আরও শোক জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক (রংপুর বিভাগ) আসাদুল হাবিব দুলুসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ।