দেশের ভয়াবহতম নৌ দুর্ঘটনার দিন আজ

দেশের ভয়াবহতম নৌ দুর্ঘটনার দিন আজ। ২০১৪ সালের ৪ আগস্ট আড়াই শতাধিক যাত্রী নিয়ে পদ্মায় ডুবে যায় পিনাক-৬ নামের একটি লঞ্চ। যা স্মরণকালে দেশের অন্যতম ভয়াবহ নৌদুর্ঘটনা। এ সময় ৪৯ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়। যাদের মধ্যে ২১ জনকে অজ্ঞাতনামা হিসেবে দাফন করে ডিএনএ সংরক্ষণ করা হয়। তবে ৬ বছরেও মেলেনি তাদের স্বজনদের খোঁজ। ভয়াবহ এই দুর্ঘটনায় নিখোঁজ ছিল আরও ৬৪ জন।
আগ্রহীরা চাইলে ডিএনএ টেস্ট করে দেহাবশেষ নিতে পারবে বলে জানান জেলা প্রশাসক। আজও সেই দুর্ঘটনার কথা মনে পড়লে আঁতকে ওঠেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।
আর যেন এমন দুর্ঘটনা না ঘটে প্রত্যাশা সাধারণ যাত্রীদের। তবে বাস্তবে ভিন্ন চিত্র দেখা গেলেও এখন আর ধারণ ক্ষমতার বাইরে যাত্রী উঠানো হয় না বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ’র জনজরদারি বাড়ানোয় লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়া কমেছে বলে জানান, মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ঘাটের ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর (বিআইডব্লিউটিএ) মোহাম্মদ আক্তার হোসেন।

তিনি বলেন, ফিটনেসবিহীন বা কাগজপত্র ছাড়া কোনো লঞ্চ চলতে দেয়া হয় না। এগুলো সবসময় তদারকির মধ্যে আছে।