গাজীপুরে ছিনতাইকালে পুলিশ কনস্টেবল আটক

গাজীপুরে ছিনতাইয়ের অভিযোগে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের এক কনস্টেবলসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) বাসন থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে বাসন থানার আউটপাড়া এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার উড়িয়াবাড়ি এলাকার আনসার মণ্ডলের ছেলে আমিনুল ইসলাম (২৫) এবং জামালপুর সদরের ভাটি গজারিয়া আকন্দবাড়ি এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে ইমরুল হাসান (২৬)। এদের মধ্যে ইমরুল হাসান গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কাশিমপুর কারা কমপ্লেক্স পুলিশ ক্যাম্পের কনস্টেবল বলে নিশ্চিত করেছেন ওই ক্যাম্পের দায়িত্ব ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরিফুল ইসলাম।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) বাসন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন মামলার উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে দুই বন্ধুসহ রাজ মিস্ত্রির শ্রমিক রেজাউল ইসলাম চান্দিনা চৌরাস্তা থেকে হেটে কোনাবাড়ির পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় যাচ্ছিলেন। পথে রাত ৩টার দিকে তারা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বাইমাইল এলাকায় পৌছলে আমিনুল ও ইমরুল তাদের পথরোধ করেন।

আমিনুল নিজেকে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নিতে চায়। রেজাউল দিতে অস্বীকার করলে তাদেরকে একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায় উঠিয়ে ভোর রাত সাড়ে তিনটার দিকে বাসন থানাধীন আউটপাড়া এলাকায় নিয়ে আসে। সেখানে রেজাউলের কাছ থেকে মোবাইল ও দুই হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় ওই দুইজন। এসময় রেজাউল তার সঙ্গীরা তাদেরকে থানায় নিয়ে যেতে বললে আমিনুল থানায় নিয়ে যেতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে তারা ছিনতাইকারী বুঝতে পেরে রেজাউল ও তার সঙ্গীরা চিৎকার শুরু করলে আমিনুল ও ইমরুল পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় তাদের আটক করা হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে আটককৃতদের পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এসময় পুলিশ আমিনুলের কাছ থেকে ছিনতাইকৃত টাকা ও মোবাইল উদ্ধার করে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, ত্রাস সৃষ্টি করে ছিনতাইয়ের অভিযোগে রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে আটককৃতদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।