এবার ছেলে হবে তো, স্ত্রীর পেট কে’টে দেখলেন স্বামী

স্ত্রীর গ’র্ভে পুত্র’সন্তান আছে কি না তা নিশ্চিত হতে সাত মাসের অন্ত্বঃসত্তা স্ত্রীর পে’ট কে’টে দেখার অভিযো’গ উঠল ভারতের উত্তরপ্রদেশের এক ব্যক্তির বিরু’দ্ধে।

পুলিশ জানিয়েছে, গু’রুত’র জ’খম অবস্থায় ওই নারীকে উদ্ধা’র করে হাস’পাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার স্বামী পান্নালালকে গ্রে’ফতার করেছে পুলি’শ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পর পর পাঁচটি কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছেন ওই নারী। অভিযোগ, এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই অশান্তি লেগে থাকত।

পুত্রসন্তানের জন্য এক প্রকার মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন পান্নালাল। স্ত্রী ষষ্ঠ বার গর্ভবর্তী হলে পুত্রসন্তানের আকাঙ্ক্ষা আরও বেড়ে গিয়েছিল তার।

উত্তরপ্রদেশের বদায়ুঁ অঞ্চলের শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা প্রবীণ সিং চৌহান জানিয়েছেন, স্ত্রীর গর্ভে পুত্রসন্তান আদৌ পালিত হচ্ছে কি না, তা নিশ্চিত হতে ধারালো অ’স্ত্র দিয়ে তার পে’ট কেটে ফেলেন পান্নালাল। ঘটনাটি জানাজানি হতেই পুলি’শে খবর দেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

পান্নালালের স্ত্রীর পরিবারের অভি’যোগ, পর পর কন্যাসন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য স্ত্রীর উপর অ’ত্যা’চার চালাতেন পান্নালাল। শুধু তাই নয়, “পুত্রসন্তান চাই-ই”- স্ত্রীকে এমন হু’ম’কিও দিতেন বলে অভি’যোগ।