আ’দরের ছ’লে যা ক’রছেন শি’ক্ষক-”বিস্তারীত ভিতরে”

গ্রামের মুরব্বিরা একটি কথা প্রায়ই বলে থাকেন, রক্ষকই এখন ভক্ষক। আ’সলেই তাই। বেশ কয়েকজন শিক্ষক এবং হুজুরদের কারণে বাংলাদেশের গোটা হুজুরদের অ’পমান করছে সবাই।

আর এ জন্যই ন্যায় নীতিবান শিক্ষকরা হয়ে প’ড়েছেন কোনঠাসায়। অথচ তারাই সমাজে সবচেয়ে বেশি সম্মানিত। সত্যিকার অর্থে যৌ’’ন হয়’রানির বি’ষয়ে আমা’দের গাফিলতির অভাব।
ফলাফল হিসেবে কেউ ল’ড়ছে রাজপথে বিচারের দা’বিতে, কেউ মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে মৃ’ত্যুর স’ঙ্গে ল’ড়াইয়ে হেরে যাচ্ছে। এখন আপনাদের বলবো নিউজে উল্লেখিত ছবি প্রস’ঙ্গে।

ছবিতে আপনারা যাদের দে’খতে পাচ্ছেন তারা স’ম্পর্কে ছাত্র এবং শিক্ষক। আদরের ছলে এই শিক্ষক কি করছে সেটা নিশ্চয় এতক্ষণে আপনারা বুঝতে পেরেছেন।ঠিক তেমনই আজ লালমনিরহাটের একজন ল’’ম্পট শিক্ষককে গ্রে’ফতার করেছে পু’লিশ।

তিনি কিনা তার বিদ্যালয়ের ছা’ত্রীদের বিভিন্ন অজুহাতে স্প’র্শ’কা’তর স্থা’নে হাত দিয়ে যৌ’’ন হ’য়’রানি ক’রতেন। নানা উপায়ে ছা’ত্রী’দের বু’কে এবং প’কে’টে হাত দিয়ে স্প’র্শ’কাত জায়গায় হা’তও দিতেন । আর এই বি’ষয়টি জা’নাজানি হয়ে গেছে অ’ভিভাবকরা তার বিরু’দ্ধে থা’নায় লিখিত অ’ভিযোগ করে করে। সে ভিত্তিতে তাকে গ্রে’ফতার করা হয।তাই অ’ভিভাবকরা সা’বধান।

আপনাদের বাচ্চাকে সামাজিক প’রিস্থিতি বুঝানোর চেষ্টা করুন। তাদের স’ঙ্গে মেশার চেষ্টা করুন। কৌশলে শিক্ষক এবং আ’ত্মীয়স্বজন তাদের স’ঙ্গে কেমন আচরণ করে তা জে’নে নিন।